Iran's airstrike in Balochistan: পাকিস্তানের বেলুচিস্তানে ইরানের বিমান হামলায় দুই শিশুর মৃত্যু

Iran's airstrike in Balochistan: পাকিস্তানের বেলুচিস্তানে ইরানের বিমান হামলায় দুই শিশুর মৃত্যু

Iran's airstrike in Balochistan


Iran's airstrike in Balochistanপাকিস্তানের বেলুচিস্তানে ইরানের বিমান হামলায় দুই শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এই হামলার পর কড়া প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে পাকিস্তান। পাকিস্তান সরকার ইরানকে সতর্ক করে বলেছে যে আমাদের সার্বভৌমত্ব লঙ্ঘন অগ্রহণযোগ্য। এই কর্মের পরিণতিও খারাপ হতে পারে। প্রকৃতপক্ষে, ইরান মঙ্গলবার পাকিস্তানে ঢুকে বেলুচ জঙ্গি সংগঠন জইশ আল-আদলের ঘাঁটি লক্ষ্য করে।

পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, ইরান আমাদের আকাশসীমা লঙ্ঘন করেছে। আমরা এর তীব্র নিন্দা জানাই। পাকিস্তানে হামলায় দুই নিরীহ মানুষ মারা গেছে। এ সময় আহত হয়েছে তিন ছাত্রী। পাকিস্তানের সার্বভৌমত্ব লঙ্ঘন অগ্রহণযোগ্য। ইরানের জানা উচিত এর মারাত্মক পরিণতি হতে পারে। পাকিস্তান সব সময় বলে যে সন্ত্রাসবাদ সব দেশের জন্যই অভিন্ন হুমকি। এ জন্য একসঙ্গে ব্যবস্থা নেওয়া যেতে পারে। একতরফা পদক্ষেপ ভাল প্রতিবেশীর লক্ষণ নয়। এই পদক্ষেপটি দ্বিপাক্ষিক আস্থাকে মারাত্মকভাবে ক্ষুন্ন করে।

পাকিস্তানের নিরাপত্তা কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, আন্তর্জাতিক সীমান্তের প্রায় ৫০ কিলোমিটার ভেতরে ঢুকে ইরান এ ব্যবস্থা নিয়েছে। তারা বেলুচিস্তানের পাঞ্জগুর জেলায় একটি মসজিদও ধ্বংস করেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জইশ আল-আদল, যাকে ইরান একটি সন্ত্রাসী সংগঠন বলে মনে করে, ২০১২ সালে গঠিত হয়েছিল। এটি ইরানের দক্ষিণ-পূর্ব প্রদেশ সিস্তান-বেলুচিস্তানে অবস্থিত একটি সুন্নি সন্ত্রাসী গোষ্ঠী। জইশ আল-আদল গত কয়েক বছরে ইরানের নিরাপত্তা বাহিনীর ওপর বেশ কয়েকটি হামলা চালিয়েছে। ডিসেম্বরে, জইশ আল-আদল সিস্তান-বেলুচেস্তানে একটি পুলিশ পোস্টে হামলার দায় স্বীকার করে, যাতে 11 জন পুলিশ নিহত হয়।

একদিন আগে, ইরানের বিপ্লবী গার্ডরা উত্তর ইরাকি শহরের ইরবিলের কাছে ইসরায়েলের মোসাদ এজেন্সিতে ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে হামলা চালায়। সিরিয়ায় ইসলামিক স্টেট সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নিয়েছে গার্ডস। ইরানও সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আইএসের সভা ধ্বংস করতে ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করেছে। হামলার কারণে চারজন মারা গেছে, এবং বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে, যাদের কাছের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, ইরাকের ইরবিল শহরে মার্কিন কনস্যুলেটের কাছেও বেশ কয়েকটি বিস্ফোরণ ঘটেছে। ইরানের বিপ্লবী গার্ড নিজেই হামলার দায় স্বীকার করেছে। সূত্রের মতে, বোমা হামলাটি অত্যন্ত সহিংস ছিল, যেখানে মার্কিন কনস্যুলেটের কাছাকাছি আটটি স্থানকে লক্ষ্যবস্তু করা হয়েছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ