Breaking

Tuesday, October 12, 2021

PowerCrisis - বিদ্যুৎ সঙ্কটের জনবিজ্ঞপ্তি সামনে আসতেই চাঞ্চল্য

PowerCrisis - বিদ্যুৎ সঙ্কটের জনবিজ্ঞপ্তি সামনে আসতেই চাঞ্চল্য 

PowerCrisis



বিদ্যুৎ সঙ্কটে দেশ, এমন তথ্য সামনে আসতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পরে দেশজুড়ে। তবে গতকাল Twitter এ আসামের APDCL একটি জনবিজ্ঞপ্তি জারি করে জানিয়েছেন - পর্যাপ্ত বিদ্যুৎ রয়েছে। গ্রাহকদের অবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ বিদ্যুৎ সরবরাহ করতে বদ্ধ পরিকর APDCL, গ্রাহকদের অযথা আতঙ্কিত হওয়ার কারন নেই। 

অথচ স্থানীয় সংবাদপত্রে APDCL একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানিয়েছে কয়লা সঙ্কটের কথা, শুধু তাই নয় এই বিজ্ঞপ্তিতে রয়েছে লোড শেডিং এর বা বিদ্যুৎ ঘাটতির কথাও । আর এই জনবিজ্ঞপ্তির ছবি স্যোসাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায় নিমেষেই। চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে সমগ্র রাজ্যেই। কিন্তু আদতেই কি এই বিজ্ঞপ্তি APDCL এর? না কি এতি ভুয়ো? এই নিয়েও রয়েছে সংশয়। 

APDCL এর ট্যুইটার হ্যান্ডেলে গ্রাহকরা এই বিষয়ে মন্তব্য করলেও কোন উত্তর দেয়নি কতৃপক্ষ। এমনকি এই বিজ্ঞপ্তি বিষয়েও কিছু জানায়নি। 




এদিকে বেশ কয়েকটি রাজ্য/কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল কয়লা সরবরাহের ঘাটতির বিষয়টিকে সামনে এনেছে, তাদের কথায় বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম কয়লা ব্যবহারকারী দেশ ভারতে একটি জ্বালানি সংকট বিরাজ করছে। 

সম্প্রতি  দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল জোর দিয়ে বলেছিলেন যে জাতীয় রাজধানী গত তিন মাস ধরে জ্বালানি সরবরাহের সাথে লড়াই করছে। তদুপরি, তিনি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে হস্তক্ষেপ করার এবং অবিলম্বে সংকট সমাধানের আহ্বান জানান। পিএম মোদিকে লেখা চিঠিতে সিএম কেজরিওয়াল আগস্ট/সেপ্টেম্বর থেকে চলমান কয়লার অভাবের দিকে প্রধানমন্ত্রী মোদির দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।


চিঠিতে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, "এটি দিল্লিতে বিদ্যুৎ সরবরাহকারী প্রধান কেন্দ্রীয় উৎপাদন কেন্দ্র থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনকে প্রভাবিত করেছে,"। তিনি আরও যোগ করেন, 'যে কোন বড় বাধা হাসপাতালে আঘাত এবং চলমান টিকা অভিযান ব্যাহত হতে পারে।'


গ্রিড অপারেটরের তথ্য অনুযায়ী, সারা দেশে বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলি স্টক কম থাকার পর উৎপাদন নিয়ন্ত্রণ করে। 15 দিনের থেকে 30 দিনের স্টক বজায় রাখার প্রয়োজনীয়তার বিপরীতে, দেশের 135 কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের অর্ধেকেরও বেশি, যা দেশের মোট বিদ্যুতের প্রায় 70 শতাংশ সরবরাহ করে, দুই দিনেরও কম জ্বালানি মজুদ রয়েছে।

আর এই তথ্য সামনে আসতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পরে দেশজুড়ে। 

No comments:

Post a Comment

পৃষ্ঠা