Breaking

Wednesday, October 21, 2020

পথনাটিকার মাধ্যমে করোনা সুরক্ষা ও সচেতনতা প্রচারে UUPTWA

পথনাটিকার মাধ্যমে করোনা সুরক্ষা ও সচেতনতা প্রচারে UUPTWA,হুগলী জেলা কমিটি 





গৌতম সাহা,আরামবাগঃ 

করোনার বিজয়রথ অবিচল গতিতে এগিয়ে চলেছে দেশ থেকে দেশান্তরে। মৃত্যুমিছিল থামার কোন লক্ষন দেখা যাচ্ছে না। করোনা সংক্রমনের ফার্স্ট ওয়েভ ছেড়ে সেকেন্ড ওয়েভের করাল অভিঘাত আঁছড়ে পড়েছে গোটা বিশ্ব জুড়ে। আমাদের দেশে দৈনিক সংক্রমণ প্রায় এক লাখের কাছাকাছি হয়েও সেটা আজ প্রায় অর্দ্ধেক সংখ্যায় নেমে এসেছে। কিন্তু আমাদের দেশের নানা রাজ্যে নানা সময় ধরে নানা রকম সামাজিক অনুষ্ঠান পালিত হয়। আর এই রকম সামাজিক অনুষ্ঠানই করোনা সংক্রমন ছড়াবার মূখ্য কারণ হয়ে ওঠে। যার উদাহরণ কেরালার ওনাম উৎসব। 


যে কেরালায় করোনা সংক্রমণ প্রায় শূন্যে নেমে এসেছিল সেখানে গত ১৭ ই অক্টোবর দৈনিক সংক্রমণ প্রায় নয় হাজারে গিয়ে পৌঁছেছিল। বর্তমানে আমাদের রাজ্যের সবথেকে বড় উৎসব দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হতে চলেছে। আর স্বাস্থ্য দপ্তরের সবথেকে বড় মাথাব্যাথা এই অনুষ্ঠান কে ঘিরেই। কারণ রাজ্যের সবথেকে বড় উৎসব কে ঘিরে মানুষের বাঁধন ছাড়া উচ্ছাস কেরোনা সংক্রমনের বড় কারণ না হয়ে ওঠে! তবে কিছুটা হলেও আশার আলো দেখা গেছে সম্প্রতি হাইকোর্টের রায়ে যেখানে প্রশাসন কে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে সমস্ত পূজামন্ডপ গুলিকে কনটেইনমেন্ট জোন হিসাবে ঘোষণা করতে। ফলে কার্যত প্যান্ডেল হপিং করে লক্ষ লক্ষ মানুষের সমাগম অথৈজলে। এর ফলে প্রশাসন কিছুটা হলেও হাঁফ ছেড়ে বাঁচল কারণ জেলায় জেলায় পূজা মন্ডপে এত মানুষের সমাগম একটা বড় করোনা বিপর্যয় ডেকে আনতেই পারতো। 



কিন্তু পূজাকে ঘিরে সাধারণ মানুষের উচ্ছাস রোখা একটা বড় সমস্যা। এরকম একটি অভূতপূর্ব সামাজিক পরিস্থিতিতে মানুষের সচেতনার ও করোনা মহামারী সংক্রান্ত সুরক্ষা প্রসারে গুরুত্বপূর্ণ উদ্যোগ নিল প্রাথমিক শিক্ষক সংগঠনে UUPTWA, হুগলী জেলা কমিটি। 

সাধারণ মানুষকে করোনা নিয়ে সচেতন করতে উস্থিয়ান প্রাথমিক শিক্ষক-শিক্ষিকারা পথনাটিকার মাধ্যমে আজ আরামবাগ শহরের বিভিন্ন অঞ্চল যথা ন-পাড়া, বাসস্টান্ড, মনসাতলা মোড় ও কানপুর মোড়ে দফায় দফায় সকাল ৯.৩০ টা থেকে দুপুর ৩.৩০ পর্যন্ত চলল করোনা মহামারী কে নিয়ে সচেতনতা তথা সুরক্ষা কর্মসূচী। সংগঠনের রাজ্য কমিটি সদস্য তন্ময় ঘড়ুই মহাশয়ের সঙগে কথা বলে জানা গেল শিক্ষার অগ্রগতি ও পেশাগত নানা সমস্যার জন্য বিভিন্ন লড়াই আন্দোলন সংঘটিত করেছেন তাদের সংগঠন। তবে সামাজিক ভাবেও তারা দায়বদ্ধ। তাই নানা রকম সামাজিক কাজে তারা সবসময়েই পা বাড়িয়ে থাকেন আর পৌছে যান জেলার এ প্রান্ত থেকে ও প্রান্তে। আজকের এই পথনাটিকটির নিৰ্দেশনা ও সম্পাদনা করেন প্ৰদীপ সিং, সামগ্রিক ব্যাবস্থাপনা উস্থি ইউনাইটেড প্ৰাইমাৱি টিৰ্চাৱস ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন , হুগলী জেলা , আৱামবাগ মহকুমা শাখা । পথ নাটিকাটির অভিনয়ে অংশগ্রহণ করেন পান্না খান , গোবিন্দ মানিক্য ভট্টাচার্য , অমল মালিক ,শতাব্দী চক্ৰবৰ্তী , অচিন্ত কুমার দাস , ঝন্টু বাগ , ছায়া সিং , অর্পণা দে প্রভৃতি শিক্ষক -শিক্ষিকাবৃন্দ।অনুষ্ঠান টির যন্ত্ৰ সঙ্গীতে অংশ গ্রহন করেন অৱবিন্দ বাগ , উজ্বল চক্ৰবৰ্তী । সমগ্ৰ বিষয়টি পৱিকল্পনা ও 

সহযোগীতাতে রয়েছেন পৃথ্বীশ হাটী , কাজল ধাড়া , ধনজ্বয় বাবু , কলিপদ মাল ।তবে সমগ্ৰ বিষয়টি রূপদান করেছেন তন্ময় বাবু নিজে। 

তন্ময় বাবু আরো জানান সারা বছর ধরেই এরকম নানা সামাজিক কর্মকান্ডের জন্য নিত্যনতুন পরিকল্পনা গ্রহণ করবেন ও মানুষের পাশে দাঁড়াবেন। 

No comments:

Post a Comment