Maldives: ভারতকে ১৫ মার্চের মধ্যে সেনা প্রত্যাহার করতে বলেছে মালদ্বীপ সরকার !

Maldives: ভারতকে ১৫ মার্চের মধ্যে সেনা প্রত্যাহার করতে বলেছে মালদ্বীপ সরকার !


Maldives President Mohammed Muizzu


চীন থেকে ফেরার পর কঠোর মনোভাব দেখাচ্ছেন মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুইজ্জু (Maldives President Mohammed Muizzu) । মুইজু, যিনি একদিন আগে নাম প্রকাশ না করে এই মন্তব্য করেছিলেন, ভারতকে 15 মার্চের মধ্যে মালদ্বীপে মোতায়েন করা তাদের সামরিক কর্মীদের প্রত্যাহার করতে বলেছেন। প্রায় দুই মাস আগে প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর মুইজ্জু (Maldives President Mohammed Muizzu) মালদ্বীপে মোতায়েন অন্যান্য দেশের সৈন্যদের অপসারণের ঘোষণা দিয়েছিলেন। নির্বাচনী প্রচারণায় তিনি ইন্ডিয়া আউটের মতো স্লোগানও দিয়েছিলেন। একদিন আগে, ভারতের নাম না নিয়ে তিনি বলেছিলেন যে মালদ্বীপকে হুমকি দেওয়ার অধিকার কোনও দেশের নেই।


রাষ্ট্রপতি মুইজু (Maldives President Mohammed Muizzu) আনুষ্ঠানিকভাবে ভারতকে 15 মার্চের মধ্যে তাদের সামরিক কর্মীদের প্রত্যাহার করতে বলেছেন, রবিবার মালদ্বীপের একজন সিনিয়র সরকারি কর্মকর্তা জানিয়েছেন। সানঅনলাইন পত্রিকার প্রতিবেদন অনুযায়ী, মুইজ্জুর (Maldives President Mohammed Muizzu) অফিসের সেক্রেটারি আবদুল্লাহ নাজিম ইব্রাহিম বলেছেন, 'ভারতীয় সামরিক কর্মীরা মালদ্বীপে থাকতে পারবেন না। এটি রাষ্ট্রপতি ড. মোহাম্মদ মুইজ্জু এবং এই সরকার/প্রশাসনের নীতি। সর্বশেষ সরকারি তথ্য অনুযায়ী, মালদ্বীপে 88 জন ভারতীয় সামরিক কর্মী রয়েছেন।


সংবাদ সংস্থা পিটিআই-এর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সেনা প্রত্যাহারের বিষয়ে আলোচনার জন্য মালদ্বীপ ও ভারত একটি উচ্চ-পর্যায়ের কোর গ্রুপ গঠন করেছে। রোববার সকালে মালেতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সদর দফতরে এর প্রথম বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে ভারতীয় হাইকমিশনার মুনু মাহাওয়ারও উপস্থিত ছিলেন। প্রেসিডেন্ট মুইজ্জুর (Maldives President Mohammed Muizzu) কার্যালয়ের সচিব আবদুল্লাহ নাজিম ইব্রাহিমও বৈঠকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, বৈঠকের আলোচ্যসূচি ছিল ১৫ মার্চের মধ্যে সেনা প্রত্যাহারের অনুরোধ। ভারত সরকার এখনও এই সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনটি নিশ্চিত করেনি বা পুরো ঘটনার বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেনি।


চীনপন্থী নেতা হিসেবে বিবেচিত মুইজ্জু (Maldives President Mohammed Muizzu) গত বছরের 17 নভেম্বর মালদ্বীপের রাষ্ট্রপতির পদ গ্রহণের পর শীঘ্রই তার সামরিক কর্মীদের প্রত্যাহারের জন্য আনুষ্ঠানিকভাবে ভারতকে অনুরোধ করেছিল। মুইজ্জুর মতে, সৈন্যদের ফেরত পাঠানোর বিষয়ে মালদ্বীপের জনগণ তাকে 'দৃঢ় আদেশ' দিয়েছে। মুইজু বলেছেন যে তিনি বাইরের কোনো দেশকে মালদ্বীপের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে প্রভাব ফেলতে দেবেন না। বিগত সরকারের আমলে স্বাক্ষরিত শতাধিক দ্বিপাক্ষিক চুক্তি পর্যালোচনার কথাও বলেন তিনি।


চীনের সাথে মুইজ্জুর (Maldives President Mohammed Muizzu) ঘনিষ্ঠতা এবং ভারতের প্রতি কঠোর মনোভাবের কারণে দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা বৃদ্ধির সম্ভাবনা রয়েছে। সম্প্রতি, তাঁর সরকারের তিন মন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী মোদীর বিরুদ্ধে অবমাননাকর মন্তব্য করেছিলেন। এ ঘটনার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। পর্যটন ভিত্তিক অর্থনীতির দেশ মালদ্বীপকে বয়কট করতে ভারতীয় নেটিজেনদের একত্রিত হতে দেখা গেছে। মালদ্বীপে যাওয়ার চেয়ে ভারতের লাক্ষাদ্বীপে যাওয়া ভালো বলে মন্তব্য করেছেন অনেকে। গোটা বিষয়টি শুরু হয় প্রধানমন্ত্রী মোদির লাক্ষাদ্বীপ সফর এবং এর ছবি ও ভিডিও প্রকাশের পর।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ