Breaking

Sunday, November 22, 2020

ছট পূজা অনুষ্ঠানে এসে নিজের দলের কর্মীদের হুমকি খোকন দাসের




ছট পূজা অনুষ্ঠানে আসে নিজের দলের কর্মীদের হুমকি খোকন দাসের



সঞ্জিত কুড়ি,পূর্ব বর্ধমান

নিজেদের দলের কর্মীদের মেরে হাত-পা ভেঙে দেওয়ার হুমকি বর্ধমান জেলা তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক খোকন দাসের। বর্ধমান পুরসভার ৩৩ নং ওয়ার্ডে ছটপূজো অনুষ্ঠানে এসে পূর্ব বর্ধমান জলা তৃণমূল কংগ্ৰেসের সাধারন সম্পাদক খোকন দাস বলেন কিছু কিছু সিপিএমের মানুষ আজকে তৃণমূলে ঢুকে তারা আজকে আমাদের এই তৃণমূল টাকে নষ্ট করার চেষ্টা করছে।সন্ধ্যা হলে মদ খাচ্ছে,রাত হলে গাঁজা মারছে রাতের অন্ধকারে বিজেপির সাথে ঘুড়ে তারা আজকে এই ৩৩ নং ওয়ার্ডের রাজনীতিটা নষ্ট করছে।৩৩ নং ওয়ার্ডের তৃণমূল নেতা মেহেরা নাম উল্লেখ করে খোকন বাবু বলেন মেহেরা কিসের নেতা যে আগে সিপিএম করতো মস্তানি করতো ওকে কে নেতা বানিয়েছে ও বিজেপির সাথে হাত মিলিয়ে এখানে মস্তানি করছে আর বিজেপি নেতা গুড্ডু রায়ন থেকে এসে এখানে মস্তানি করছে মেরে হাত পা ভেঙ্গে দেবো ওর কোন বাপ বাঁচাতে পারবে না। আমরা প্রশাসনকে সব বলেছি প্রশাসন যদি কোন ব্যবস্থা নানেয় তাহলে প্রশাসনকে ঘিড়ে রাখার খুমকিও দেন খোকন দাস। 


খোকন দাস বলেন আমরা সিপিএমের সাথে লড়াই করে বাংলায় এসেছি।এবার বিজেপির সাথে লড়াই করবো। তৃণমূলটাকে নষ্ট করতে দেবোনা। আমরা নোংরা রাজনীতি করি না।মস্তানি করি না। আমরা মানুষকে ভালোবেসে তৃণমূল কংগ্ৰেস টাকে শক্তিশালী করতে চাই।  মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত শক্ত করতে চাই। যার তৃণমূল কংগ্ৰেস কে নিয়ে নোংরা রাজনিতি করতে চান তারা সতর্ক হোন। তা না হলে ফল ভালো হবে না। 



এর  পরিপ্রেক্ষিতে বিজেপি নেতা শ্যামল রায় বলেন, তৃণমূল কংগ্রেসের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব গোটা রাজ্য জুড়ে চলছে। বর্ধমান শহরের প্রতিটি জায়গাতে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে মানুষ বিস্তৃত হয়ে আজ দ্বিতীয় প্ল্যাটফর্ম খুঁজছে। তা হলো ভারতীয় জনতা পার্টি। গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব তৃণমূলের নতুন কিছু নয় ২০১১ সালের পর থেকে বাংলায় যত দাঙ্গা হয়েছে তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীর মধ্যে। ভারতীয় জনতা পার্টি গণতন্ত্রে বিশ্বাসী। বিজেপি সাধারণ মানুষের পাশে থেকে সাধারণ মানুষের হয়ে কাজ করতে চায়।

No comments:

Post a Comment