Breaking: জাতীয় শিক্ষানীতি মেনে নিলো রাজ্য ! ৪ বছরে স্নাতক, জানিয়ে দিলো উচ্চশিক্ষা দপ্তর

Breaking: জাতীয় শিক্ষানীতি মেনে নিলো রাজ্য! ৪ বছরে স্নাতক, জানিয়ে দিলো উচ্চশিক্ষা দপ্তর 


education



৩ বছর নয়, স্নাতক ডিগ্রি মিলবে ৪ বছরে, জানিয়ে দিল উচ্চশিক্ষা দপ্তর। ২০২৩-২০২৪ শিক্ষাবর্ষ থেকেই রাজ্যের সরকারি, সরকারি সাহায্যপ্রাপ্ত কলেজ-সহ উচ্চশিক্ষার প্রতিষ্ঠানগুলিতে জাতীয় শিক্ষানীতির আদলে নয়া স্টেট এডুকেশন পলিসি চালুতে সিলমোহর দিল উচ্চশিক্ষা দপ্তর।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে- "রাজ্যের বিভিন্ন সরকারী/ সাহায্যপ্রাপ্ত/স্পন্সরকৃত উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানে 4 বছরের UG স্তরের প্রোগ্রাম চালু করার বিষয়টি কিছু সময়ের জন্য রাজ্য সরকারের বিবেচনাধীন ছিল। রাজ্য সরকার বিষয়টি পরীক্ষা করার জন্য একটি বিশেষজ্ঞ কমিটি গঠন করেছে এবং UGC ডিও-এর মাধ্যমে জাতীয় পাঠ্যক্রম ও ক্রেডিট ফ্রেমওয়ার্ক (NCCF) বাস্তবায়ন সংক্রান্ত সুপারিশ জমা দিয়েছে। নং 11/2021(QIP)(CBCS) তারিখ 31.01.2023. বিশেষজ্ঞ কমিটি বিদ্যমান সম্পদের সর্বোত্তম ব্যবহার বা অতিরিক্ত সম্পদের স্ব-সঞ্চালনের মাধ্যমে রাজ্যের সমস্ত সরকারী/সহায়তাপ্রাপ্ত/স্পন্সরকৃত উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে 2023-2024 শিক্ষাবর্ষ থেকে 4 বছরের UG কোর্সের জন্য NCCF বাস্তবায়নের সুপারিশ করেছে।" 

বিজ্ঞপ্তি অনুসারে- "শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যতের কথা মাথায় রেখে, রাজ্য সরকারের উপযুক্ত কর্তৃপক্ষের দ্বারা সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে 4 বছরের UG স্তরের প্রোগ্রামটি সমস্ত সরকারী/সরকারী সাহায্যপ্রাপ্ত/সরকারি স্পনসরকৃত উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে চালু করা হবে। একাডেমিক সেশন 2023-2024 এ। তাদের UGC জাতীয় পাঠ্যক্রম এবং ক্রেডিট অনুযায়ী ডিগ্রি প্রদান করা হবে UG স্তরের প্রোগ্রামের জন্য । এই বছর UG স্তরের কোর্সে ভর্তি প্রক্রিয়া, প্রাতিষ্ঠানিক স্তরে স্বতন্ত্র অনলাইন ভর্তি পোর্টালের মাধ্যমে পরিচালিত হবে, যেমনটি গত শিক্ষাবর্ষে করা হয়েছিল।"


বিজ্ঞপ্তি অনুসারে এবছর উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় (WB 4 Years Integrated Course ) উত্তীর্ণ ছাত্রছাত্রীদের চার বছরের অনার্স ডিগ্রি কোর্সেই ভর্তি হতে হবে। এতদিন যা ছিল তিন বছরের। তবে তিন বছরের ডিগ্রি কোর্সও থাকছে। সেক্ষেত্রে স্নাতক ডিগ্রি মিললেও অনার্স মিলবে না।


অর্থাৎ জাতীয় শিক্ষানীতি ২০২০ (NEP 2020) এর নিয়মকেই কার্যকরী করা হচ্ছে। তবে অভিন্ন পোর্টালের মাধ্যমে কলেজে ভর্তির প্রক্রিয়া শুরু হচ্ছে না এ বারেও। কলেজে কেন্দ্রীয় ভাবে অনলাইনে ভর্তির সিদ্ধান্ত নিয়েও এই নিয়ে তিন বার তা পিছিয়ে দেওয়া হলো। আপাতত পুরনো পদ্ধতি মেনেইে এই বছর ভর্তি প্রক্রিয়া চলবে কলেজগুলিতে।

Press release regarding 4 years UG course and central online portal



এককথায় একাধিক পরিবর্তন হতে চলেছে উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে। এখন থেকে যেকোন সময়, যতবার খুশি স্নাতক স্তরে পড়াশোনা করা থেকে বিরত থাকা বা ভর্তি হওয়া যাবে। এমনকি যেকোন সময় বিষয় পরিবর্তন করারও সুযোগ দেওয়া হবে নতুন এই শিক্ষা ব্যবস্থায়। ব্যবসা, শিল্প, কলা, বিজ্ঞান ইত্যাদি সব বিভাগেই মিলবে এই সুযোগ।


স্নাতকের দু’টি সেমেস্টার (প্রথম বর্ষ) উত্তীর্ণ হলে সার্টিফিকেট কোর্স,১ বছর পর পড়া ছেড়ে দিলে দেওয়া হবে Under Graduate Certificate

চারটি সেমেস্টার (দ্বিতীয় বর্ষ) উত্তীর্ণ হলে ডিপ্লোমা বলে গ্রাহ্য হবে,২ বছর পর পড়া ছেড়ে দিলে দেওয়া হবে Under Graduate Diploma

৩ বছর পর পড়া ছেড়ে দিলে দেওয়া হবে Bachelor Degree । 

৪ বছর পড়াশোনা (WB 4 Years Integrated Course) করলে, তবেই মিলবে Honours Bachelor Degree । 

এছাড়াও স্নাতক স্তরে পড়াশোনার সাথে মিলবে Internship এর সুযোগ।


৪ বছরের স্নাতক প্রোগ্রামের পাঠ্যক্রমে প্রচলিত মূল ধারার শাখাগুলির সঙ্গে নানা ধরনের কোর্স চালু করা হবে, যেমন-  ভাষার কোর্স, দক্ষতা বৃদ্ধির কোর্স, পরিবেশবিদ্যার কোর্স, ডেটাসংক্রান্ত কোর্স, ডিজিটাল ও প্রযুক্তি সংক্রান্ত কোর্স, স্বাস্থ্য, যোগাসন এবং খেলাধুলো সংক্রান্ত কোর্স।


যে শিক্ষার্থীরা ৪ বছরের কোর্স-এ ১৬০ নম্বর জমাতে পারবেন, তাঁরা স্নাতক স্তরে অনার্স ডিগ্রিটি পাবেন। এ ছাড়া, যে ছাত্রছাত্রীরা বিশেষ বিষয়ে গবেষণার কাজ করতে চান, তাঁদের এই ৪ বছরের কোর্সে একটি গবেষণা প্রকল্পের কাজ করতে হবে। এর জন্য তাঁরা কোনও গবেষণায় বিশেষীকরণ-সহ স্নাতক স্তরে অনার্স ডিগ্রি অর্জন করবেন।


দ্বিতীয় সেমেস্টারের পরে ছাত্রছাত্রীরা তাঁদের পছন্দের মূল বিষয়টি চাইলে পরিবর্তন করতে পারেন বা তা অপরিবর্তিতও রাখতে পারেন। পড়ুয়ারা একটি বা দু'টি মুখ্য বিষয়ে স্নাতক স্তরের পড়াশুনো করতে পারবেন এই নতুন ব্যবস্থায়। পড়ুয়াদের একটি মুখ্য বিষয়ে স্নাতকের ডিগ্রিটি পেতে হলে তাঁকে সেই বিষয়ে ন্যূনতম ৫০ শতাংশ ক্রেডিট নম্বর পেতে হবে।

চার বছরের কোর্সটি গবেষণাভিত্তিকও হতে পারে। সেক্ষেত্রে বাড়তি সুবিধা পাবেন ছাত্রছাত্রীরা। ৭৫ শতাংশ বা তার বেশি নম্বর থাকলে সরাসরি পিএইচডির ‘কোর্সওয়ার্ক’ শুরু করা যাবে। সেক্ষেত্রে মাস্টার ডিগ্রির নির্ধারিত এক বছরের কোর্সটি শেষ করতে হবে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ